হাতে আঁকা শাড়ি ও পোশাকের ক্ষেত্রে যা করা যাবে

১. হাতে আঁকা মসলিন, সিল্ক, এন্ডি, জয়শ্রী বা তসর এমনকি সুতি কাপড়ও ড্রাই ওয়াশ করলে সবচেয়ে ভালো হয়।

২. যদি হাতে আঁকা কাপড় সাধারণভাবে ধুতে হয়, তবে স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানিতে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

৩. শ্যাম্পু বা মাইল্ড কোনো ডিটারজেন্ট ব্যবহার করতে হবে। এতে কাপড় বা রঙয়ের কোন ক্ষতি হবে না।

৪. হাতে আঁকা শাড়ি বা পোশাক অবশ্যই উল্টো পিঠে আয়রন করতে হবে।

৫. ধোয়ার পর হাতে আঁকা কাপড় ছায়া ও শীতল স্থানে শুকাতে হবে।

৬. বাইরে থেকে এসে হাতে আঁকা শাড়ি বা পোশাক বদলে নিয়ে ফ্যানের বাতাসেই শুকিয়ে নিতে হবে।

৭. বড় বড় ভাঁজ করে শাড়ি গুছিয়ে হ্যাংগারে ঝুলিয়ে রাখলে বহুদিন পর্যন্ত ভালো থাকবে।

৮. নতুন হাতে আঁকা শাড়ি ও পোশাক কেনার পর উল্টো করে রোদে দিতে হবে অন্তত ২ দিন। এতে পোশাক ও শাড়ির রঙ পাকা হবে।

হাতে আঁকা শখের শাড়ি তৈরি করা যেমন কষ্টের কাজ, তেমনই বেশি তার মূল্যমান। দাম দিয়ে কেনা জিনিস যেন সামান্য অবহেলায় নষ্ট না হয়, চা বা আইসক্রীম খাওয়ার সময় শাড়িতে যেন পড়ে না যায়, জল-কাদা লেগে যেন দাগ না লেগে যায় সেদিকে খেয়াল রাখুন। যত্নে রাখুন, যুগ যুগ পরুন ভালোবাসার হাতে আকাঁ শাড়িটি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shopping Cart
Scroll to Top